অ্যামাজন আসছে বাংলাদেশে

বাংলাদেশে আসতে চাইছে অ্যামাজন

অ্যামাজন কর্তৃপক্ষ তাদের বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে বাংলাদেশের উদ্যোক্তাদের পণ্য বিক্রি করতে চাইছে।

আমাজনের এক প্রতিনিধি দল বুধবার (১৭ জুলাই) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের আইসিটি টাওয়ারে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সঙ্গে এক বৈঠকে অংশ নেন। তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বৈঠকে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের পক্ষে নেতৃত্ব দেন এবং কোম্পানিটির ইন্টারন্যাশনাল এক্সপানশন বিভাগের ক্যাটাগরি ম্যানেজার গগন দিপ সাগর অ্যামাজনের পক্ষে নেতৃত্ব দেন।

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী বৈঠক শেষে বলেন, ‘অ্যামাজনের বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে দেশের পণ্য বিক্রি করা গেলে ২০৩০ সালের মধ্যে দেশের রফতানি আয় দ্বিগুণ করা সম্ভব হতে পারে। অ্যামাজন কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশের উদ্যোক্তাদের পণ্য আমেরিকা-ইউরোপের ওয়্যারহাউজগুলোতে নিয়ে নিজেদের বৈশ্বিক প্ল্যাটফর্মে বিক্রি করতে চাইছে। এতে স্থানীয় পণ্য উৎপাদক ও উদ্যোক্তারা যাতে সহজে পণ্য পাঠাতে পারে সেই সুবিধাটিই চাইছে অ্যামাজন।’

তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘সাধারণত কোনো পণ্য রপ্তানি করতে গেলে এলসি খোলা, বন্ডেড ওয়্যারহাউজ, এনবিআর, কাস্টমসসহ ব্যাপক প্রক্রিয়ার মধ্যে যেতে হয়। ছোট ছোট অনেক উদ্যোক্তাদের পক্ষে এটি সম্ভব হয় না। এই প্রক্রিয়াটি এমনভাবে সহজ করা যাতে এসব উদ্যোক্তারা অ্যামাজনের কাছে সরাসরি পণ্য পাঠাতে পারে।’

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টার সঙ্গে এক বৈঠকে এই বিষয়ে আলোচনা করা হবে।’

প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, ‘অ্যামাজন বাংলাদেশে আসবে কিনা তা নির্ভর করবে তাদের ইচ্ছা ও আমাদের নীতির উপর। তবে এখন পর্যন্ত আলোচনায় অ্যামাজন বাংলাদেশে অফিস খুলছে না।’